• বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ০৩:২৬ অপরাহ্ন
সর্বশেষ
এএসপি আনিস হত্যা মামলায় বাবার সাক্ষ্য গ্রহণ শেষ আমরা যুদ্ধ চাই না, শান্তি চাই: শেখ হাসিনা আগামী বাজেটে মূল্যস্ফীতি রোধে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দেওয়া হবে: অর্থ প্রতিমন্ত্রী অ্যামাজন-শেভরন-বোয়িং বাংলাদেশে বিনিয়োগে আগ্রহী: বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী অবৈধ সম্পদ অর্জন: স্ত্রীসহ পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে দুদকের মামলা জলবায়ুর ঝুঁকি মোকাবেলা আন্তর্জাতিক সহায়তার আহ্বান পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বেনজীর-আজিজকে সরকার প্রটেকশন দেবে না: সালমান এফ রহমান ভিকারুননিসায় যমজ বোনকে ভর্তির নির্দেশ হাইকোর্টের এবারও ধরাছোঁয়ার বাইরে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পরিচালনা কমিটি পটুয়াখালীর দুর্গত এলাকা পরিদর্শনে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

ইউপি নির্বাচনে একটু ঝগড়াঝাঁটি হয়েই থাকে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

Reporter Name / ১৪০ Time View
Update : বৃহস্পতিবার, ১১ নভেম্বর, ২০২১

নিজস্ব প্রতিবেদক :
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান বলেছেন, পুলিশসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তাদের কাজ ঠিকমতো করছে। এ ধরনের নির্বাচন আধিপত্যের নির্বাচন, গোষ্ঠীর মধ্যে নির্বাচন। এখানে একটু ঝগড়া মারামারি হয়ই। তবে নিরাপত্তা বাহিনী বসে নেই। চলমান ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে সহিংসতা নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন আসাদুজ্জামান খান কামাল। আজবৃহস্পতিবার দুপুরে সচিবালয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে গঠিত নিরাপত্তা বিষয়ক উপ-কমিটির সভা অনুুষ্ঠিত হয়। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে নিরাপত্তা বিষয়ক এ উপ-কমিটি গঠন করা হয়েছে। সভা শেষে ইউপি নির্বাচনে সহিংসতা নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, পুলিশ পুলিশের কাজ করছে। আমাদের বিশাল এলাকা নিয়ে নির্বাচন হচ্ছে। সবসময় আপনারা দেখে আসছেন, এটা গোষ্ঠী-গোষ্ঠীর নির্বাচন, আধিপত্যের নির্বাচন, এখানে সবসময়ই একটু ঝগড়াঝাঁটি হয়েই থাকে। তিনি আরও বলেন, বেশ কয়েকটি জায়গায় হতাহতের ঘটনা আমরা দেখছি। পুলিশ যথার্থভাবে চিহ্নিত করেছে, দোষীদের ইতোমধ্যে গ্রেপ্তার করে ফেলেছে। যারা এই চক্রান্তের সঙ্গে জড়িত তাদেরকে চিহ্নিত করে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে। মন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী স্পষ্ট বলে গিয়েছেন- সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য আমাদের নিরাপত্তা বাহিনীকে যাতে ব্যবস্থা গ্রহণ করতে বলা হয়, সেটি করা হয়েছে। সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন করার জন্য তারা কাজ করে যাচ্ছেন। এ সময় মন্ত্রী জানান, আগামী ২৪-২৯ নভেম্বর গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় লোকজ মেলা অনুষ্ঠান হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ওই মেলায় কোনও একদিন যাবেন।
স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর অনুষ্ঠান শুরু ১৬ ডিসেম্বর: আগামী ১৬ ডিসেম্বর থেকে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর অনুষ্ঠান শুরু হচ্ছে বলে জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। আর ১৬ ডিসেম্বরের আগেই মুজিব শতবর্ষের অনুষ্ঠান সরকার শেষ করতে চায় বলেও জানান তিনি। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী অনুষ্ঠানে বিদেশি অনেক অতিথি আসার কথা। সুনির্দিষ্ট করে দু’জন রাষ্ট্র ও সরকারপ্রধান আসতে পারেন। দুই দিনব্যাপী (১৬-১৭ ডিসেম্বর) অনুষ্ঠান হবে সংসদের দক্ষিণ প্লাজায়। তিনি জানান, জাতীয় প্যারেড স্কয়ারেও ১৬ তারিখে অনুষ্ঠান হবে। কড়া নিরাপত্তা থাকবে এই দুই এলাকা ও আশপাশে। এসব অনুষ্ঠান ও উৎসবস্থলের এক কিলোমিটারের মধ্যে গ্যাস সিলিন্ডারের গাড়ি অবস্থান করতে পারবে না। আসাদুজ্জামান খান কামাল আরও জানান, এ সময় ভ্রাম্যমাণ দোকান থাকবেন না এবং নির্মাণকাজ বন্ধ থাকবে। জাতির পিতার সমাধিস্থল ও সারাদেশেও পর্যাপ্ত নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হবে। বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী ও স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উপলক্ষে জাতীয় সংসদ ভবনের দক্ষিণ প্লাজা, প্যারেড গ্রাউন্ড ও গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় জাতীয়ভাবে অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হচ্ছে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, এইসব উৎসবস্থল যেমন জাতীয় প্যারেড স্কয়ার, সংসদ ভবন, টুঙ্গিপাড়ার এক কিলোমিটারের মধ্যে কোনো গ্যাস সিলিন্ডারের গাড়ি রাখা যাবে না। এক কিলোমিটার দূরে গাড়ি রেখে সভাস্থলে আসতে হবে। সেই নিষেধাজ্ঞাটাও আমরা জারি করবো। আপনারা জানেন মাঝে মধ্যে গ্যাস সিলিন্ডার বিপত্তি ঘটায়। সেদিকে লক্ষ্য রেখে আমরা এটা করতে যাচ্ছি। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী অনুষ্ঠানগুলো শেষ করতে যাচ্ছি, সঙ্গে স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তির অনুষ্ঠান শুরু করবো আগামী ১৬ ডিসেম্বর। অনেকগুলো অনুষ্ঠান নভেম্বরের শেষে থেকে শুরু করে ডিসেম্বর পর্যন্ত আমরা পালন করবো। বিদেশ থেকে মেহমানরা অনুষ্ঠানগুলোতে আসবেন। এখন পর্যন্ত খবর পেয়েছি দুজন রাষ্ট্রপ্রধান হয়তো আসতে পারেন। এখনও আমরা শতভাগ নিশ্চিত করে বলতে পারবো না। এছাড়াও সারাদেশের অনুষ্ঠানের নিরাপত্তার বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। সংসদ ভবনের দক্ষিণ প্লাজার অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর আসা ও যাওয়ার সময়ের নিরাপত্তা এবং বিদেশিদের নিরাপত্তার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এই অনুষ্ঠান ঘিরে ট্রাফিক ব্যবস্থাপনার জন্য একটি উপ-কমিটি এবং দেশি-বিদেশি অতিথিদের নিরাপত্তার জন্য আরেকটি উপ-কমিটি দেওয়া হয়েছে বলেও জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। তিনি আরও বলেন, আগামী ১৬ ও ১৭ ডিসেম্বর সংসদ ভবনের অনুষ্ঠানস্থল ও পার্শ্ববর্তী এলাকায় বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ১৬ ডিসেম্বর জাতীয় প্যারেড স্কয়ারে আরেকটি জাতীয় অনুষ্ঠান হবে। সবকিছু মিলিয়ে ডিসেম্বর মাসটি অনুষ্ঠানের মাসে পরিণত হচ্ছে। নিরাপত্তার প্রশ্নে যা যা করার আমরা সবই করবো। বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী নিয়ে ২৪ থেকে ২৯ নভেম্বর টুঙ্গিপাড়ায় অনুষ্ঠান হবে জানিয়ে আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, সেখানে গ্রাম বাংলার লোকজ শিল্পকে তুলে ধরা হবে। বাংলাদেশে ঐতিহ্য নিয়ে সেখানে সাতদিন ব্যাপী অনুষ্ঠান হবে। সেখানে প্রধানমন্ত্রী যাবেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category