• শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ০৭:৪৪ পূর্বাহ্ন
  • ই-পেপার
সর্বশেষ
যুক্তরাষ্ট্র, ইউরোপীয় ইউনিয়নে কমলেও নতুন বাজারে পোশাক রপ্তানি বাড়ছে স্বাধীনতাবিরোধীরা কোটা সংস্কার আন্দোলনের নামে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত: আইনমন্ত্রী বেনজীরের স্ত্রীর ঘের থেকে মাছ চুরির ঘটনায় গ্রেপ্তার ৩ সচেতনতার অভাবে অনেক মানুষ বিভিন্ন দুরারোগ্য ব্যাধিতে আক্রান্ত: প্রধান বিচারপতি আইনশৃঙ্খলা লঙ্ঘনের কর্মকা- বরদাশত করা হবে না: ডিএমপি কমিশনার মিয়ানমারের শতাধিক সেনা-সীমান্তরক্ষী ফের পালিয়ে এলো বাংলাদেশে গোয়েন্দা পুলিশ পরিচয়ে ডাকাতি, গ্রেপ্তার ৫ ঢাকায় ছয় ঘণ্টায় রেকর্ড ১৩০ মিলিমিটার বৃষ্টি, জলাবদ্ধতা নবম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনা প্রণয়নে জাপানের সহায়তা চাওয়া হয়েছে: পরিকল্পনামন্ত্রী বাংলাদেশের সঙ্গে সম্পর্ককে নতুন উচ্চতায় নিতে চায় চীন: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

নিয়ন্ত্রণে আনা যাচ্ছে না ভেজাল ওষুধ

Reporter Name / ১৮ Time View
Update : শনিবার, ২২ জুন, ২০২৪

নিজস্ব প্রতিবেদক :
নানা উদ্যোগেও নিয়ন্ত্রণে আনা যাচ্ছে দেশের ভেজাল ওষুধ। বরং প্রতারক চক্র আটা, ময়দা, সুজি দিয়ে বানাচ্ছে নকল অ্যান্টিবায়োটিক ট্যাবলেট, ক্যাপসুল।

তারপর তা অবাধে দেশজুড়ে বাজারজাত করছে। শুধু অ্যান্টিবায়োটিক নয়, লিভার সিরোসিসের চিকিৎসায় ব্যবহৃত অ্যালবুমিন ইনজেকশন নিয়েও চলছে ভেজাল সিন্ডিকেট। ফলে ইনজেকশন পুশ করার পরই অনেক সময় রোগী মারা যাচ্ছে। আর দোষ গিয়ে পড়ছে ডাক্তারদের ঘাড়ে।

অনেক চিকিৎসকই ঝুঁকি এড়াতে এই ওষুধ এখন আর ব্যবহার করছেন না। ওসমানী মেডিকেলের চিকিৎসকরা অ্যালবুমিন ওষুধ ব্যবহার না করার সিদ্ধান্ত নেন। তাছাড়া বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ), ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালসহ অন্যান্য হাসপাতালেও ভেজাল অ্যালবুমিন নিয়ে বিড়ম্বনায় পড়তে হয় চিকিৎসকদের। ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তর এবং স্বাস্থ্য খাত সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য জানা যায়।

সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, ওষুধে ভেজাল থাকলে রোগীর জীবন ঝুঁকিতে পড়ে যায়। মাঝেমধ্যেই ভেজাল অ্যালবুমিন পাওয়া যায়। এমনিতেই অ্যালবুমিনে প্রতিক্রিয়া হতে পারে। অনেক সময় রোগীর আইসিইউর প্রয়োজন হয়। তার মধ্যে যদি ভেজাল থাকে তাহলে রোগীকে বাঁচানো কঠিন হয়ে যায়।গত বছরের নভেম্বরে এক নকল অ্যালবুমিন প্রস্তুতকারীকে গ্রেপ্তার করে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে কয়েক মাস আগে লিভার সিরোসিসে আক্রান্ত এক রোগীকে অ্যালবুমিন ইনজেকশন দেয়ার পর সেই রোগী মারা যান। এরপর আরো কয়েকজন রোগীকে ওই ইনজেকশন দেওয়ার পর জটিলতা দেখা দেয়ায় আইসিইউতে চিকিৎসা দিয়ে সুস্থ করা হয়। ভেজাল ওষুধ তৈরির অপরাধে সর্বোচ্চ ১০ বছরের জেল ও ১০ লাখ টাকা জরিমানার বিধান রেখে ওষুধ ও কসমেটিক আইন-২০২৩ পাস করেছে সরকার।

সূত্র জানায়, হুবহু আসল মোড়কে গ্যাস্ট্রিক, ক্যান্সার, ডায়াবেটিস, কিডনিসহ বিভিন্ন জটিল রোগের নকল ওষুধ বাজারে ছাড়ছে সংঘবদ্ধ চক্র; যা দেখে ভোক্তাদের আসল-নকল পরখ করা অনেকটাই দুঃসাধ্য। ২০২৩ সালে ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তর ১ হাজার ৬৯৬টি মোবাইল কোর্ট, আটটি ড্রাগ কোর্ট ও ৪৪৭টি ম্যাজিস্ট্রেট কোর্টের মাধ্যমে অভিযান চালিয়ে ১ কোটি ৭৩ লাখ ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেছে। তবে ভেজাল ওষুধের জন্য জেলে দেয়ার কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি।

গত বছরের ডিসেম্বর ও চলতি বছরের জানুয়ারিতে ভেজাল হ্যালোথেনে ঘটেছে রোগী মৃত্যুর ঘটনা। সূত্র আরো জানায়, রোগ প্রতিরোধ করে জীবন বাঁচাতে মানুষ ওষুধ সেবন করে। কিন্তু জীবন রক্ষাকারী ওষুধেও ভেজাল! ভেজাল ওষুধ তৈরি এবং বাজারজাতকরণের সঙ্গে জড়িত চক্রকে ধরতে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী নিয়মিত অভিযান পরিচালনা করছে। এ চক্রকে সহযোগিতা করছে অতিমুনাফালোভী কিছু ফার্মেসি মালিক।

মিটফোর্ডকেন্দ্রিক কিছু অসাধু ফার্মেসি ব্যবসায়ী এ চক্রের সঙ্গে জড়িত। সেখান থেকে পাইকারিভাবে সারা দেশে ছড়িয়ে পড়ে এ ভেজাল ওষুধ। গ্রামগঞ্জে ক্রেতার হাতে পৌঁছে যাচ্ছে প্রাণঘাতী এসব নকল ওষুধ। ওষুধে ভেজালকারীদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করা জরুরি হলেও দেশে ভেজাল ওষুধ কারবারিদের কোনো দৃষ্টান্তমূলক সাজা এখন পর্যন্ত মেলেনি।

মিটফোর্ড ঘিরে এ চক্রের কথা সবার জানা। কিন্তু কার্যকর পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে না। এদিকে এ প্রসঙ্গে ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের পরিচালক মো. সালাউদ্দিন বলেন, হ্যালোথেন ওষুধের দোকানে বিক্রি হয় না।

হাসপাতালগুলো কোম্পানির এজেন্টের মাধ্যমে ওষুধগুলো কিনত। যেহেতু ওষুধটি ফার্মেসিতে বিক্রি হয় না, তাই আমরা জানতাম না ওষুধটি নকল হচ্ছে। হ্যালোথেন ছাড়াও অন্যান্য ভেজাল ওষুধ ধরতে মাঠ পর্যায়ে পোস্ট মার্কেট সার্ভিল্যান্স ও কন্ট্রোল করা হয়। তবে সমস্যা হলো আমাদের জনবলের ঘাটতি আছে।

মাঠ পর্যায়ে এক-দুজন কর্মকর্তা কাজ করেন। অন্যদিকে এ ব্যাপারে স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রী ডা. সামন্ত লাল সেন জানান, ওষুধে ভেজাল দেখার কাজ ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের। আমি তাদের এ বিষয়ে কঠোর পদক্ষেপ নেয়ার নির্দেশনা দিয়েছি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category