• রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ০৯:৪৮ অপরাহ্ন
সর্বশেষ
যশোরে তীব্র তাপপ্রবাহে গলে যাচ্ছে সড়কের বিটুমিন জাল সার্টিফিকেট চক্র: জিজ্ঞাসাবাদ করা হতে পারে কারিগরি বোর্ডের চেয়ারম্যানকে গরিবদের ব্যাংক অ্যাকাউন্টের সংখ্যা কমছে বাড়ছে গরমজনিত অসুস্থতা, হাসপাতালে রোগীদের চাপ ড্রিমলাইনারের কারিগরি বিষয়ে বোয়িংয়ের সঙ্গে কথা বলতে মন্ত্রীর নির্দেশ গ্রামীণ স্বাস্থ্যসেবার জন্য গ্রামে গ্রামে ঘুরছি: স্বাস্থ্যমন্ত্রী ৩য় ধাপের উপজেলা ভোটেও আপিল কর্তৃপক্ষ জেলা প্রশাসক আগামী বাজেটে তামাকপণ্যের দাম বাড়ানোর দাবি জাতিসংঘে পার্বত্য শান্তিচুক্তি বাস্তবায়নের অগ্রগতি তুলে ধরল বাংলাদেশ দুর্নীতির অভিযোগের বিরুদ্ধে সাবেক আইজিপি বেনজীরের পাল্টা চ্যালেঞ্জ

শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌপথে রাতেও চলবে ফেরি

Reporter Name / ২০০ Time View
Update : বুধবার, ২৭ এপ্রিল, ২০২২

নিজস্ব প্রতিবেদক :
শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌপথে দীর্ঘ আট মাস পর রাতের বেলায়ও ফেরি চলাচল শুরু হয়েছে। এতে দীর্ঘ সময় পর পদ্মা সেতুর নিচ দিয়ে ফের রাতে বেলায় ফেরি চলাচল করবে। গত মঙ্গলবার রাত থেকে পরীক্ষামূলকভাবে এ ফেরি চলাচল শুরু হয়। বিআইডব্লিউটিসির পরিচালক (বাণিজ্য) এস এম আশিকুজ্জামান বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, ঈদে ঘরমুখো মানুষের বিড়ম্বনা লাঘবে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। গত মঙ্গলবার রাতে পরীক্ষামূলক ফেরি চলাচল করেছে। গতকাল বুধবার সকাল থেকে এই নৌপথে ২৪ ঘণ্টা ফেরি চলাচল অব্যাহত থাকবে। পদ্মা বহুমুখী সেতুর প্রজেক্ট ম্যানেজার ও নির্বাহী প্রকৌশলী দেওয়ান আবদুল কাদের জানান, গতকাল বুধবার থেকে যাত্রী ও যানবাহন পারাপারের জন্য ২৪ ঘণ্টা ফেরি সার্ভিস চালু করা হয়েছে। এ ছাড়া পদ্মা সেতুর নিচ দিয়ে ফেরি চলাচল করবে। তবে খুব সতর্কতার সঙ্গে। ফেরিগুলো শিমুলিয়া থেকে বাংলাবাজার যাবে পদ্মা সেতুর ১৪, ১৫ ও ১৬ নম্বর খুঁটির পাশ দিয়ে। বাংলাবাজার থেকে শিমুলিয়া আসবে সেতুর ১৯, ২০ ও ২১ নম্বর খুঁটির পাশ দিয়ে। পদ্মা সেতুর পিলারের সঙ্গে ফেরির ধাক্কা লাগার ঘটনায় গত বছরের ১৮ আগস্ট থেকে এই নৌপথে ফেরি চলাচল বন্ধ করে দেয় কর্তৃপক্ষ। পরে দিনের বেলায় সীমিত আকারে হালকা যানবাহন নিয়ে ফেরি চলাচল করলেও রাতে সম্পূর্ণ বন্ধ থাকে। অন্যদিকে, যানবাহন ও যাত্রীর চাপ সামাল দিতে শিমুলিয়া-মাঝিরকান্দি রুটে চলাচলরত ফেরির বহরে গত মঙ্গলবার যুক্ত হয়েছে ফেরি ‘বেগম রোকেয়া’। আজ বুধবার থেকে ‘ফেরি ফরিদপুর’ যুক্ত হওয়ার কথা রয়েছে। এ ছাড়া শিমুলিয়া থেকে বাংলাবাজার ও মাঝিরকান্দি নৌপথে রাতে লঞ্চ চলাচলের সময় দুই ঘণ্টা বাড়ানো হয়েছে। এখন রাত ১০টা পর্যন্ত লঞ্চ চলাচল করবে বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ। ফেরির পাশাপাশি ঘরমুখো মানুষ লঞ্চ ও স্পিডবোটে পদ্মা পাড়ি দিচ্ছেন। এই নৌ রুটে ঘরমুখো মানুষের ভিড় বাড়ছেই। গতকাল বুধবার ভোর থেকে চাপ বাড়ে শিমুলিয়া ঘাটে। এ রুটে আটটি ফেরি থাকলেও এখন পাঁচটি ফেরি চলাচল করছে। পরে ঘণ্টার পর ঘণ্টা আটকে আছে যাত্রী ও যানবাহন। সকালে যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে ফেরি বেগম রোকেয়া সার্ভিসিং পয়েন্টে চলে যায়। সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, বাংলাবাজার-শিমুলিয়া নৌ রুটে এখন পর্যন্ত পাঁচটি ফেরি চলাচল করছে। মাঝিকান্দি-শিমুলিয়া রুটে সন্ধ্যা পর্যন্ত চলে আরও দুটি ফেরি। ঈদ যত ঘনিয়ে আসছে ততোই যাত্রীদের ভিড় বাড়ছে। ফলে এ রুটে ফেরি না বাড়ালে ভোগান্তিতে পড়তে হবে যাত্রীদের। তবে সকাল থেকে লঞ্চ ও স্পিডবোটে যাত্রীদের নদী পার হতে দেখা গেছে। সরেজমিনে দেখা গেছে, শিমুলিয়া থেকে আসা ফেরিতে মোটরসাইকেলের সংখ্যাই বেশি। মাত্র পাঁচটি ফেরি চলাচল করায় ঘাটে আসা যানবাহনগুলোকে দীর্ঘ সময় ফেরির জন্য অপেক্ষা করতে হচ্ছে। বিআইডব্লিউটিসি সূত্র জানায়, এ নৌ রুটে আরও দুটি মিডিয়াম ফেরিসহ তিনটি ফেরি যুক্ত হচ্ছে। শিমুলিয়ার উদ্দেশ্যে ফেরি তিনটি রওনা দিয়েছে। এদিকে সোমবার রাতে কুঞ্জলতা ফেরি দিয়ে ট্রায়াল দেওয়া হয়েছিল। চাপ বাড়লে বাংলাবাজার-শিমুলিয়া রুটে ২৪ ঘণ্টা ফেরি সার্ভিস শুরু হবে। এ নৌ রুটে কে-টাইপ ফেরি কুমিল্লা, কুঞ্জলতা, ক্যামেলিয়া, কর্ণফুলী ও রোরো ফেরি বেগম সুফিয়া কামাল চলছে। এছাড়াও মিডিয়াম ফেরি কদম, বেগম রোকেয়া ও ছোট ফেরি ফরিদপুর যুক্ত হবে ঈদের ছুটি শুরুর আগেই। বিআইডব্লিউটিসির বাংলাবাজার ঘাটের ব্যবস্থাপক মো. সালাহউদ্দিন আহমেদ জানান, বৃহস্পতিবার থেকে ঘাটে যাত্রীদের চাপ শুরু হবে। এ রুটে ১০টি ফেরি নিয়মিত চলাচল করবে। এ ঘাটে দায়িত্বরত ট্রাফিক পুলিশের সার্জেন্ট আসিব বলেন, ঘরমুখো মানুষের দুর্ভোগ নিরসনে ঘাট এলাকায় ট্রাফিক পুলিশের পক্ষ থেকে সব ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। ফেরি চলাচল স্বাভাবিক থাকলে মানুষ নির্বিঘেœ বাড়ি ফিরতে পারবেন। হাইওয়ে পুলিশের মাদারীপুর জোনের পুলিশ সুপার মো. হামিদুল আলম বলেন, ঘরমুখো মানুষের যাত্রা নির্বিঘœ করতে সব প্রস্তুতি নিয়েছে। সড়কের গুরুত্বপূর্ণ স্থানে হাইওয়ে পুলিশের টিম কাজ করবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category