• বৃহস্পতিবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২৩, ১২:০২ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ
বান্দরবানে প্রায় সাড়ে তিন কোটি টাকা মাদকদ্রব্য ধ্বংস বিচারপতির গাড়িতে তেল কম দেওয়ায় ফিলিং স্টেশনকে জরিমানা বিচারক সোহেল রানার সাজার বিরুদ্ধে আপিলের রায় ১২ ডিসেম্বর শেয়ারবাজারে বিদেশী বিনিয়োগ ক্রমাগত কমছে বিএনপি এক পর্যায়ে জামায়াতের বি-টিম হবে: কাদের রমজান মাস উপলক্ষে সব ধরনের প্রস্তুতি নিচ্ছে সরকার: বাণিজ্যমন্ত্রী বান্দরবানে জেলা প্রশাসকের আদেশে পিতার মৃত্যুতে এক যুবককে প্যারোলে মুক্তি ত্রিপুরা ও খেয়াং সম্প্রদায়ের ব্যক্তিবর্গেরদের সাথে মতবিনিময় বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি নির্বাচনে ভোটার উপস্থিতি নিয়ে চিন্তিত নয় আ. লীগ: কাদের ডেঙ্গু বৃদ্ধির জন্য দায়ী জলবায়ুর পরিবর্তন: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

সাতক্ষীরায় পর্যটন শিল্পে আশার আলো গড়ে উঠছে দৃষ্টিনন্দন পার্ক ও রিসোর্ট

Reporter Name / ১৩৭ Time View
Update : মঙ্গলবার, ৫ জুলাই, ২০২২

মোঃ রমজান আলী :
সাতক্ষীরায় পর্যায়ক্রমে গড়ে উঠছে দৃষ্টিনন্দন পার্ক ও রিসোর্ট, আর তাই এখানকার ব্যবসায়ীরা পর্যটন শিল্পে আশার আলো দেখছেন। এমন একটি সময় ছিলো যখন পর্যটকরা সাতক্ষীরায় একমাত্র সুন্দরবন দেখার জন্য আসত। কিন্তু এখন দিন বদলেছে, সাতক্ষীরায়ও লেগেছে উন্নয়নের ছোঁয়া। পাশাপাশি গড়ে উঠছে দৃষ্টিনন্দন পার্ক ও রিসোর্ট, মানসম্মত হোটেল ও রেস্তোরা। আর এসব দেখার জন্য দেশের বিভিন্ন প্রান্তের জেলা থেকে পর্যটকরা আসছেন সাতক্ষীরায়। ফলে সাতক্ষীরা এখন পর্যটকদের কাছে হট কেক হয়ে আর্বিভূত হয়ে উঠেছে। আর পদ্মা সেতু চালু হওয়ায় সাতক্ষীরাবাসী পর্যটন শিল্পে অভূতপূর্ব ও অবারিত হাতছানি দেখতে পাচ্ছেন। কেননা পর্যটকরা এখানে এসে একই সাথে সুন্দরবনের সৌন্দয্যের পাশাপাশি এখানকার দৃষ্টিনন্দন পার্ক ও রিসোর্টে তাদের অবসর সময় আনন্দের সাথে উপভোগ করতে পারছেন। সাতক্ষীরা পর্যটকদের আকর্ষণের কেন্দ্র বিন্দু হয়ে ওঠায় এখানকার পর্যটন শিল্পের সাথে জড়িত ব্যবসায়ীরা আশার আলো দেখছেন এই পর্যটন শিল্পকে কেন্দ্র করে। গত কয়েক দশকে সাতক্ষীরায় ১০-১২টি পার্ক ও রিসোর্ট চালু হয়েছে । কিন্তু তাদের মধ্যে যেসব পার্ক ও রিসোর্ট পর্যটকদের কাছে দৃষ্টিনন্দন ও আকর্ষণীয় হয়ে উঠেছে সেগুলো নিয়েই আজকের আলোচনা।
মোজাফফর গার্ডেন ঃ সাতক্ষীরার মোজাফফর গার্ডেন অ্যান্ড রিসোর্ট ১০০ একর চমৎকার জমির উপর অবস্থিত। এটি সাতক্ষীরা শহরের খড়িবিলায় অবস্থিত। শহরের ব্যস্ততা থেকে নিরিবিলি ও শান্ত পরিবেশে এটি অবস্থিত। এটি জেলাবাসীর অন্যতম বিনোদন ও পর্যটন কেন্দ্র। মোজাফফর গার্ডেন অ্যান্ড রিসোর্ট সাতক্ষীরায় মন্টু মিয়ার বাগানবাড়ি হিসেবে ব্যাপক পরিচিত। ১৯৮৯ সালে, কে এম খায়রুল মুজাফফর (মন্টু) সাতক্ষীরা জেলায় ১২০ বিঘা জমি জুড়ে এই মোজাফফর গার্ডেন অ্যান্ড রিসোর্টটি প্রতিষ্ঠা করেন। এখানে আছে অসংখ্য গাছপালা। সবুজের সমারোহ ও খোলামেলা প্রাকৃতিক পরিবেশ যা সহজেই দর্শনার্থীদের নজর কাড়ে। মোজাফফর গার্ডেন অ্যান্ড রিসোর্টে থাকার জন্য ৪টি ভবনে মোট ৩০টি কক্ষ রয়েছে। এই কারুকাজ করা কক্ষগুলিতে, আপনার আধুনিক জীবনযাপনের জন্য প্রয়োজনীয় সমস্ত সুবিধা রয়েছে। মোজাফফর গার্ডেন অ্যান্ড রিসোর্টের লেকে প্যাডেল বোট এবং মাছ ধরার সুবিধা রয়েছে। মিটিং এবং কনফারেন্স রুম, ফিশ অ্যাকোয়ারিয়াম, থ্রিডি থিয়েটার এবং চিড়িয়াখান, শিশু পার্ক, খেলার মাঠ এবং বিভিন্ন আকর্ষণীয় ভাস্কর্য। অতিথিদের উপভোগের জন্য, এখানে ব্যাডমিন্টন এবং টেবিল টেনিস কোর্টও রয়েছে। মোজাফফর গার্ডেন অ্যান্ড রিসোর্টে পুরুষ ও মহিলাদের জন্য আলাদা মসজিদ রয়েছে। এখানে বাংলা এবং চাইনিজ খাবারের ব্যবস্থা আছে। পাশাপাশি এখানে ঘাসের জমিতে হাঁটা ও বসার ব্যবস্থা আছে, আছে পুকুরে সাঁতার কাটার ব্যবস্থাও । প্যাডেলবোট নিয়ে বোটিং করতে যেতে পারেন যে কেউ বা মাছ ধরতে কিছু সময় কাটাতে পারেন এখানকার দর্শনার্থীরা। তরুণ অতিথিদের কথা মাথায় রেখে এখানকার কর্তৃপক্ষ তৈরি করেছে খেলার মাঠ এবং আকর্ষণীয় ভাস্কর্য,বহিরঙ্গন ব্যাডমিন্টন এবং ইনডোর টেবিল টেনিস এর ব্যবস্থা। এই রিসোটের বিভিন্ন প্রাণীর সমন্বয়ে গঠিত চিড়িয়াখানাটি বেশ বড়। চিড়িয়াখানায় বিভিন্ন প্রজাতির প্রাণীরা আগত অতিথিদের বিনোদনের অন্যতম মাধ্যম হিসেবে কাজ করে। পিকনিকের জন্য মোজাফফর গার্ডেন অ্যান্ড রিসোর্টে মোট ১০৫টি পিকনিক স্পট রয়েছে। আগত অতিথিদের আরাম নিশ্চিত করার জন্য এর নিরাপত্তা এবং গাড়ি পার্কিং এর ব্যবস্থা রয়েছে।
রুপসী দেবহাটা ম্যানগ্রোভ ঃ
রূপসী দেবহাটা ম্যানগ্রোভ পর্যটন কেন্দ্রটি সাতক্ষীরার দেবহাটা উপজেলায় অবস্থিত। এটি দেবহাটা উপজেলার একটি অন্যতম পর্যটন কেন্দ্র। রূপসী দেবহাটা ম্যানগ্রোভ যেন একটি মিনি সুন্দরবন যেটি ইছামতি নদীর তীর ঘেঁষে গড়ে তুলেছে স্থানীয় প্রশাসন। এখানে জেলার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে হাজার হাজার দর্শণার্থী এখানে বেড়াতে আসে। অল্প কয়েকদিনেই এই স্পটটি বিশেষ করে শীতকালে এখানে পিকনিক স্পট ও প্রকৃতি দর্শনের স্থান হিসেবে বেশ সুনাম অর্জন করেছে। সুন্দরবনের আদলে তৈরী এই ম্যানগ্রোভ ফরেষ্টটি উপজেলা পরিষদ এবং উপজেলা প্রশাসনের যৌথ প্রচেষ্টার ফসল। এখানে সুন্দরবন থেকে বিভিন্ন প্রকৃতির ও বিভিন্ন জাতের ফলজ, বনজ ও ঔষধী গাছ এনে লাগানো হয়েছে এবং কৃত্রিমভাবে বন সৃষ্টি করা হয়েছে। ইছামতি নদীর পাড়ে প্রায় ৬০ একর জমির উপর এই ম্যানগ্রোভ ফরেষ্ট বিস্তৃত। এটা পর্যটন কেন্দ্রে রূপান্তরিত করার জন্য বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। ইতোমধ্যে জেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় এটিকে পর্যটন কেন্দ্র হিসাবে ঘোষণা করা হয়েছে এবং পরিপূর্ণভাবে পর্যটন কেন্দ্রের সকল সৌন্দর্য বৃদ্ধির জন্য, দূর দূরান্ত থেকে আসা পর্যটক ও প্রকৃতি প্রেমীদের বিনোদনের জন্য এবং শিশুদের বিনোদনের জন্য প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম সরবরাহের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।
তুফান কনভেনশন সেন্টার ঃ
তুফান কনভেনশন সেন্টার সাতক্ষীরার অন্যতম বিনোদন ও পর্যটন কেন্দ্রে পরিণত হয়েছে। এটি ৩১ বিঘা জায়গা নিয়ে মনোরম পরিবেশে আকর্ষণীয় ও দৃষ্টিনন্দন স্থাপত্য ও ভাস্কর্যের সমন্বয়ে গড়ে উঠেছে। ২০১৫ সালে প্রতিষ্ঠিত তুফান কনভেনশন সেন্টারে আছে ইভেন্টের জন্য উপযুক্ত জায়গা, ছোটদের খেলার ব্যবস্থা। এখানে আছে – কিডস জোন, পিকনিকের বাইরের জায়গা, হোটেল, রেস্তোরাঁসহ সব ধরনের বিনোদন । এটি উন্মুক্ত বা দর্শনার্থীদের প্রবেশ ফি না থাকায় প্রায় প্রতিদিন হাজার হাজার দর্শনার্থী তাদের অবসর সময়টাকে কিছুটা আনন্দময় ও মনকে সতেজ করতে এখানে চলে আসেন। এখানে সম্পূর্ণ সজ্জিত, উচ্চ-প্রযুক্তির সুবিধা রয়েছে যা সেমিনার, বার্ষিকী, এনগেজমেন্ট, সেলিব্রেশনসহ বড় বড় ইভেন্ট আয়োজন করা যায়। যার মধ্যে কনভেনশন, ট্রেড শো, বিবাহ এবং অভ্যর্থনা, কর্পোরেট মিটিং এবং যেকোনো ধরনের বিশেষ উপলক্ষ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category