• বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ০৩:৫৪ অপরাহ্ন
সর্বশেষ
‘মুজিবনগর দিবস’ বাঙালির পরাধীনতার শৃঙ্খলমুক্তির ইতিহাসে অবিস্মরণীয় দিন: প্রধানমন্ত্রী শ্রম আইনের মামলায় ড. ইউনূসের জামিনের মেয়াদ বাড়ল জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় গুরুত্ব থাকবে জনস্বাস্থ্যেও: পরিবেশ মন্ত্রী অনিবন্ধিত অনলাইনের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ: তথ্য প্রতিমন্ত্রী মধ্যপ্রাচ্যে উত্তেজনায় বিকল্পভাবে পণ্য আমদানির চেষ্টা করছি: বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী স্বাস্থ্যসেবায় অভূতপূর্ব অর্জন বাংলাদেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করেছে: রাষ্ট্রপতি শান্তি আলোচনায় কেএনএফকে বিশ্বাস করেছিলাম, তারা ষড়যন্ত্র করেছে: সেনাপ্রধান বন কর্মকর্তার খুনিদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিতে কাজ করছে মন্ত্রণালয়: পরিবেশমন্ত্রী পুরান ঢাকার রাসায়নিক গুদাম: ১৪ বছর ধরে সরানোর অপেক্ষা ভাসানটেক বস্তিতে ফায়ার হাইড্রেন্ট স্থাপন করা হবে : মেয়র আতিক

২০ লাখ নকল ওষুধ জব্দ, গ্রেপ্তার ১০

Reporter Name / ১৯৩ Time View
Update : সোমবার, ৬ জুন, ২০২২

নিজস্ব প্রতিবেদক :
আটা ও ময়দা মিশ্রিত বিভিন্ন ব্র্যান্ডের প্রায় ২০ লাখ পিস নকল ওষুধ উদ্ধার করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের গোয়েন্দা লালবাগ বিভাগের কোতোয়ালি জোনাল টিম। এ সময় নকল ওষুধ তৈরির চক্রের মূলহোতাসহ ১০ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়। গত রোববার রাজধানীর মিটফোর্ড, কুমিল্লা নগরীর কাপ্তান বাজারের হিমালয় ল্যাবরেটরিস ও ঢাকার সাভার থানা এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তাররা হলেন-. মো. কবির হোসেন (৪৪), আইনুল ইসলাম (৩২), মো. মোরশেদ আলম শাওন (৩৫), আল আমিন চঞ্চল (৩৫), মো. সাগর (১৯), মো. আবির (২১), মো. রুবেল (২৩), মো. নাজিম উদ্দিন (৪২), মো. তৌহিদ (২৮) ও মো. পারভেজ (৩২)। গতকাল সোমবার ডিএমপির মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান ডিবি প্রধান অতিরিক্ত কমিশনার এ কে এম হাফিজ আক্তার। তিনি বলেন, গ্রেপ্তারদের কাছ থেকে ইনসেপ্টা ফার্মাসিউটিক্যালস কোম্পানির প্যানটোনিক্স ২০ এমজি নয় লাখ ১৮ হাজার ৪৫৬ পিস, স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের সেকলো ২০ এমজি চার লাখ ১০ হাজার ৪০০ পিস, দি একমি ল্যাবরেটরিজ কোম্পানির মোনাস ১০ এমজি ৫৮ হাজার ৫০০ পিসসহ আটটি দেশীয় কোম্পানির ওষুধ এবং আমেরিকার ব্রণসন কোম্পানির প্রায় ২০ লাখ পিস নকল ওষুধ উদ্ধার করা হয়। হাফিজ আক্তার বলেন, ইউনানি ও আয়ুর্বেদিক ওষুধ যখন থেকে ট্যাবলেট ফরমেটে এল তখন থেকেই প্রতারণার একটি দ্বার উন্মোচন হয়। কারখানাগুলোতে তাদের নিজস্ব ওষুধ বাদ দিয়েও প্রচলিত ওষুধের নকল করে বাজারে ছাড়তে থাকে। নামি ব্র্যান্ড ও ক্রেতা চাহিদা বিবেচনায়, গ্যাসের ওষুধ, ব্যথার ওষুধ ও বিভিন্ন অ্যান্টিবায়োটিক ওষুধ তারা নকল করে। আর এসব ওষুধ তৈরি হয় কুমিল্লার কাপ্তান বাজারে অবস্থিত হিমালয় ল্যাবরেটরিজ নামে একটি ইউনানি ও হারবাল ওষুধ কোম্পানিতে। তিনি বলেন, বাংলাদেশের নামকরা আটটি ও আমেরিকার একটি কোম্পানির জনপ্রিয় ওষুধ তারা আটা, ময়দা ও অন্যান্য রাসায়নিক মিশিয়ে শুধু মোড়ক লাগিয়ে বাজারে ছাড়তো। এই চক্রটির মূলহোতা মো. কবির হোসেন ও মোরশেদ আলম শাওন নকল ওষুধ তৈরি করে। গ্রেপ্তার বাকিরা বিভিন্ন কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে বাজারজাত করতেন। ডিবি প্রধান বলেন, ২০২১ সালের আগস্ট মাস থেকে এখন পর্যন্ত ডিবি পুলিশ ২০টি অভিযান চালিয়ে ৪৪ জনকে গ্রেপ্তার করেছে। তাদের বিরুদ্ধে আমরা বিশেষ ক্ষমতা আইনে ১৪টি মামলা করেছি। এ ছাড়া গ্রেপ্তারদের বিরুদ্ধে ডিএমপির কোতোয়ালি থানায় মামলা করা হয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category