• রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৩:৪৭ অপরাহ্ন
সর্বশেষ
সিন্ডিকেটদের মদদ দিচ্ছে বিএনপি: কাদের পরজীবি দল হিসেবে জাপার প্রয়োজন আছে, গৃহপালিত নয়: জিএম কাদের দেশে কিশোর-তরুণদের প্রাণঘাতী যানে পরিণত হয়েছে মোটরবাইক চট্টগ্রাম নগর ছাত্রলীগের শীর্ষ পদ পেতে আগ্রহী ১৪০০ জন ভারতীয় বন বিভাগের সহায়তায় নিজ দেশে ফিরল দুই হাতি বান্দরবানে সড়ক নির্মাণে বালির পরিবর্তে পাহাড়ের মাটি ব্যবহার স্পেনের বিনিয়োগকারীদের বাংলাদেশের বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চলে বিনিয়োগের আহ্বান রাষ্ট্রপতির অ্যাপভিত্তিক রাইড শেয়ারিংয়ে অনীহা বেশিরভাগ মোটরসাইকেল চালকেরই কোটি টাকার অস্ত্রোপচার বাংলাদেশে করা হয়েছে বিনামূল্যে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী শিশু আয়ানের মৃত্যুর ঘটনা তদন্তে নতুন কমিটি গঠন হাইকোর্টের

অর্থপাচার বন্ধে আমাদের সবাইকে কাজ করতে হবে: হাইকোর্ট

Reporter Name / ২৭১ Time View
Update : সোমবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০২১

নিজস্ব প্রতিবেদক :
দেশের অর্থপাচার বন্ধে আমাদের সবাইকে কাজ করতে হবে। আমরা কেউ চাই না এত রক্ত দিয়ে অর্জিত বাংলাদেশে দুর্নীতি হোক। যেভাবে অর্থপাচার হচ্ছে, আমাদের তো মাঝে মাঝে ঘুম হয় না। আমরা কেউ বসে থাকতে পারি না। কাউকে না কাউকে কাজ করতে হবে। অর্থপাচারে জড়িত থাকার অভিযোগে ১৪ প্রতিষ্ঠান ও ২৯ ব্যক্তির নামে দাখিল করা দুদকের প্রতিবেদনের ওপর শুনানিতে সোমবার বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি এ কে এম জহিরুল হকের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ নিজ পর্যবেক্ষণে এমন মন্তব্য করেন। এর আগে গত রোববার একই বেঞ্চে অর্থপাচারে জড়িত ৪৩ ব্যক্তি-প্রতিষ্ঠানের তালিকা হাইকোর্টে দাখিল করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। বাংলাদেশের এসব ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের নাম বহুল আলোচিত পানামা ও প্যারাডাইস পেপারস কেলেঙ্কারিতে এসেছিল। গতকাল সোমবার ওই প্রতিবেদন নিয়ে আদালতে দুদকের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী মো. খুরশীদ আলম খান ও রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল আমিন উদ্দিন মানিক। এসময় আদালত বলেন, আমাদের দেশে দুর্নীতিবিরোধী কোনো সংগঠন নেই। ভারতে আছে, তারা মানববন্ধন ও আন্দোলন করে থাকেন। আমরা কেউই চাই না, এত রক্ত দিয়ে জীবন দিয়ে অর্জিত বাংলাদেশে দুর্নীতি হোক। এর আগে হাইকোর্টের নির্দেশে তদন্ত কমিটির পক্ষ থেকে ৪৩ ব্যক্তি-প্রতিষ্ঠানের তালিকা প্রতিবেদন তৈরি করা হয় বলে জানান দুদকের আইনজীবী। গত রোববার প্রতিবেদন উপস্থাপন করা হলে শুনানির জন্য গতকাল সোমবার দিন ধার্য রাখেন আদালত। সেদিন প্রতিবেদন দাখিল করে দুদক জানিয়েছিল, দেশীয় ও আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের তথ্য বিশ্লেষণ এবং ইন্টারন্যাশনাল কনসোর্টিয়াম অব ইনভেস্টিগেটিভ জার্নালিস্টসের (আইসিআইজে) ওয়েবসাইটে দেশভিত্তিক তালিকা পর্যালোচনা করে এসব ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের সংশ্লিষ্টতার তথ্য পাওয়া গেছে।
পানামা পেপারস বিষয়ে ১৪ নাম: প্রতিবেদনে বলা হয়, কর ফাঁকি দিয়ে নামে-বেনামে সম্পদের পাহাড় গড়া, আইন অমান্য করে দেশের টাকা বিদেশে পাচার ও অবৈধ আয়ের টাকায় ক্ষমতার মালিক হওয়া প্রসঙ্গে ২০১৬ সালের এপ্রিল মাসের প্রথম সপ্তাহে পানামা পেপারস শিরোনামে বিশ্বজুড়ে সংবাদ প্রকাশিত হয়। তালিকায় ১৪ জনের মধ্যে রয়েছেন- বারাকা পতেঙ্গা পাওয়ার লিমিটেডের চেয়ারম্যান ফয়সাল আহমেদ চৌধুরী, সেতু করপোরেশনের পরিচালক উম্মে রুবানা ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী, সিডব্লিউএন (এ) আজমত মঈন, বনানীর সালমা হক, এস এম জোবায়দুল হক, বারিধারা কূটনৈতিক এলাকার সৈয়দ সিরাজুল হক, ধানমন্ডির দিলীপ কুমার মোদি ও শরীফ জহির, গুলশানের তারিক ইকরামুল হক, ইউনাইটেড গ্রুপের চেয়ারম্যান হাসান মাহমুদ রাজা, পরিচালক খন্দকার মঈনুল আহসান শামীম, পরিচালক আহমেদ ইসলাইল হোসেন ও পরিচালক আখতার মাহমুদ।
প্যারাডাইস পেপারসে ২৯ নাম: জাতীয় দৈনিকে প্রকাশিত প্রতিবেদনের শিরোনাম তুলে ধরে দুদকের প্রতিবেদনে বলা হয়, প্যারাডাইস পেপারস নামে অর্থপাচার সংক্রান্ত প্রকাশিত সংবাদের প্রথম পর্বে ১০ জন এবং দ্বিতীয় পর্বে ১৯ জনের নাম পাওয়া যায়। প্রথম পর্বের ১০ জন হলেন- মাল্টিমোড লিমিটেডের আবদুল আউয়াল মিন্টু, নাসরিন ফাতেমা আউয়াল, তাবিথ আউয়াল, তাফসির আউয়াল, তাজওয়ার মো. আউয়াল, নিউইয়র্কের তাইরন পিআইএর মোগল ফরিদা ওয়াই, যুক্তরাষ্ট্রের শহিদ উল্লাহ, বনানীর চৌধুরী ফয়সাল, বারিধারার আহমাদ সামির ও মহাখালীর ব্রোমার অ্যান্ড পার্টনারস অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট বাংলাদেশ লিমিটেড।
দ্বিতীয় পর্বের ১৯ জন হলেন- ভেনাস ওভারসিস কোম্পানির মুসা বিন শমসের, বারিধারার ডাইনামিক এনার্জির ফজলে এলাহী, ইন্ট্রিপিড গ্রুপের কে এইচ আসাদুল ইসলাম, খালেদা শিপিং কোম্পানির জুলফিকার আহমেদ, জেমিকো ট্রেড ইন্টারন্যাশনালের তাজুল ইসলাম তাজুল, বেঙ্গল শিপিং লাইনসের মোহাম্মদ মালেক, সাউদার্ন আইস শিপিং কোম্পানির শাহনাজ হুদা রাজ্জাক, ওসান আইস শিপিং কোম্পানির ইমরান রহমান, শামস শিপিং লিমিটেডের মোহাম্মদ এ আউয়াল, উত্তরার এরিক জনসন অ্যান্দ্রেস উইলসন, ইন্ট্রিডিপ গ্রুপের ফারহান ইয়াকুবুর রহমান, জেমিকো ট্রেড ইন্টারন্যাশনালের তাজুল ইসলাম, পদ্মা টেক্সটাইলের আমানুল্লাহ চাগলা, নিউটেকনোলজি ইনভেস্টমেন্টের মোহাম্মদ আতিকুজ্জামান, মাল্টার মোহাম্মদ রেজাউল হক, জেমিকো ট্রেড ইন্টারন্যাশনালের মোহাম্মদ কামাল ভূঁইয়া, তুহিন-সুমন, সেলকন শিপিং কোম্পানির মাহতাবা রহমান, জেমিকো ট্রেড ইন্টারন্যাশনালের ফারুক পালওয়ান ও গ্লোবাল এডুকেশন সিস্টেমের মাহমুদ হোসাইন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category