• বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ০৪:৪৫ পূর্বাহ্ন
  • ই-পেপার
সর্বশেষ
ঈদযাত্রায় বাড়তি ভাড়া আদায় করলে ব্যবস্থা বেনজীরের অঢেল সম্পদে হতবাক হাইকোর্ট তারেকসহ পলাতক আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে: প্রধানমন্ত্রী দুয়েক সময় আমাদের ট্রলার-টহল বোটে মিয়ানমারের গুলি লেগেছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ব্যবসায়িদের প্রতি নিয়ম-নীতি মেনে কার্যক্রম পরিচালনার আহ্বান রাষ্ট্রপতির সহকর্মীকে হত্যাকারী কনস্টেবল মানসিক ভারসাম্যহীন দাবি পরিবারের বিনামূল্যে সরকারি বাড়ি গৃহহীনদের আত্মমর্যাদা এনে দিয়েছে: প্রধানমন্ত্রী চেকিংয়ের জন্য গাড়ি থামানো চাঁদাবাজির অংশ নয়: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সারা দেশে ভোটার তালিকায় রোহিঙ্গা কতজন জানতে চেয়েছেন হাইকোর্ট বান্দরবান থেকে কেএনএফের ৩১ জনকে পাঠানো হলো চট্টগ্রাম কারাগারে

আইন অঙ্গনে শোকের ছায়া, সাবাইকে কাঁদিয়ে চলে গেলেন আইনজীবী আবদুল বাসেত মজুমদার

Reporter Name / ৩৪৬ Time View
Update : বুধবার, ২৭ অক্টোবর, ২০২১

নিজস্ব প্রতিবেদক :
বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান ও সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি আবদুল বাসেত মজুমদার মারা গেছেন। আজ বুধবার সকাল ৮টার দিকে রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ও তার ছেলে সাঈদ আহমেদ রাজা। বাসেত মজুমদার দুই ছেলে ও দুই মেয়েসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। মৃত্যুর সময় তার বয়স হয়েছিল ৮৩ বছর। প্রবীণ এই আইনজীবীর জানাজা বেলা ১১টায় বনানী কেন্দ্রীয় মসজিদ, এরপর বাদ জোহর হাইকোর্ট প্রাঙ্গণে হয়। ঢাকার পর গ্রামের বাড়ি কুমিল্লায় শানিচোঁ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে জানাজা শেষে তাকে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়। এর আগে ৩০ সেপ্টেম্বর আবদুল বাসেত মজুমদারকে ইউনাইটেড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে সোমবার তাকে লাইফ সাপোর্টে নেওয়া হয়। ফুসফুসের জটিলতায় ভুগছিলেন তিনি। বাসেত মজুমদার একাধিকবার বার কাউন্সিলের নেতৃত্ব দিয়েছেন। দায়িত্ব পালন করেছেন সুপ্রিম কোর্ট বারের সম্পাদক ও সভাপতি হিসেবে। দুঃস্থ আইনজীবীদের জন্য নিজের নামে ট্রাস্ট ফান্ড গঠন করেন তিনি। দেশের বিভিন্ন আইনজীবী সমিতিতে এই ফান্ড থেকে অর্থ সহায়তা দেওয়া হয়। বঙ্গবন্ধু আইনজীবী পরিষদের সাবেক সভাপতি বাসেত মজুমদার বর্তমানে নবগঠিত বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক পদে দায়িত্বপালন করেন। আইন পেশায় ৫৬ বছরে ধরে নিয়োজিত ‘গরিবের আইনজীবী’ খ্যাত আবদুল বাসেতের জন্ম ১৯৩৮ সালের ১ জানুয়ারি। কুমিল্লার লাকসাম (লালমাই) উপজেলার শানিচোঁ গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন তিনি। তার বাবার নাম আবদুল আজিজ মজুমদার, আর মা জোলেখা বিবি। স্থানীয় হরিচর হাইস্কুল থেকে ম্যাট্রিক (এসএসসি) এবং কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজ থেকে আইএ (এইচএসসি) ও বিএ পাস করেন বাসেত মজুমদার। তারপর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মাস্টার্স ও এলএলবি ডিগ্রি অর্জন করেন। পরে ১৯৬৬ সালে হাইকোর্টে আইনজীবী হিসেবে তালিকাভুক্ত হন। জ্যেষ্ঠ এ আইনজীবীর বড় ছেলে গোলাম মহিউদ্দিন আবদুল কাদের ব্যবসা করেন। ছোট ছেলে সাঈদ আহমেদ রাজা সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী। দুই মেয়ের মধ্যে ফাতেমা আক্তার লুনা রবীন্দ্রসংগীত শিল্পী। সর্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মিউজিকে পড়াশোনা করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপনা করছেন। ছোট মেয়ে খাদিজা আক্তার ঝুমা উত্তরা মেডিকেল কলেজের অ্যাসোসিয়েট প্রফেসর।
রাষ্ট্রপতির শোক: আওয়ামী লীগের উপদেষ্টাম-লীর সদস্য ও প্রবীণ আইনজীবী আবদুল বাসেত মজুমদারের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। আজ বুধবার এক শোকবার্তায় তিনি বলেন, দেশে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা ও বিচারপ্রার্থীদের আইনি সহায়তা প্রদানে আবদুল বাসেত মজুমদারের অবদান চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবে। বাসেত মজুমদারের মৃত্যু দেশের আইন অঙ্গনের জন্য এক অপূরণীয় ক্ষতি বলে উল্লেখ করেন রাষ্ট্রপতি। তিনি বলেন, তার মৃত্যুতে দেশ একজন দক্ষ আইনজীবীকে হারালো। রাষ্ট্রপতি বাসেত মজুমদারের রুহের মাগফিরাত কামনা এবং তার শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।
প্রধানমন্ত্রীর শোক: প্রবীণ আইনজীবী আবদুল বাসেত মজুমদারের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজ বুধবার এক শোকবার্তায় তিনি মরহুমের আত্মার মাগফিরাত কামনা এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান। এছাড়া সাধারণ মানুষকে আইনি সহযোগিতার পাশাপাশি আইনজীবীদের পরম বন্ধু বাসেত মজুমদারের আইন অঙ্গণে অবদানের কথা শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করেন।
স্পিকারের শোক: প্রবীণ আইনজীবী আবদুল বাসেত মজুমদারের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী। আজ বুধবার এক শোকবার্তায় মরহুমের রুহের মাগফেরাত কামনা এবং তার পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান স্পিকার।
আইনমন্ত্রী-অ্যাটর্নি জেনারেলের শোক: আওয়ামী লীগের উপদেষ্টাম-লীর সদস্য ও সুপ্রিম কোর্টের সিনিয়র আইনজীবী আবদুল বাসেত মজুমদারের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন আইন, বিচার ও সংসদবিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক ও অ্যাটর্নি জেনারেল এ এম আমিন উদ্দিন। আজ বুধবার এক শোকবার্তায় আইনমন্ত্রী বলেন, আবদুল বাসেত মজুমদার ছিলেন একজন সৎ, নির্ভীক ও অভিজ্ঞ আইনজীবী। তিনি দরিদ্র ও অসহায় মানুষের আইনগত অধিকার প্রতিষ্ঠায় সবসময় সোচ্চার থেকেছেন। আদালতে গরিব-অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন। এজন্য তিনি ‘গরিবের আইনজীবী’ নামে খ্যাত। আইনের শাসন ও মানুষের ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠায় তার অবদান ভুলবার নয়। তার মৃত্যুতে বাংলাদেশের আইন অঙ্গনে এক বিরাট শূন্যতা তৈরি হলো। মন্ত্রী তার শোকবার্তায় মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান। প্রবীণ এ আইনজীবীর মৃত্যুতে পৃথক শোকবার্তা দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট (বার) আইনজীবী সমিতি ও বাংলাদেশ বার কাউন্সিল এবং অ্যাটর্নি জেনারেল কার্যালয়। অ্যাটর্নি জেনারেল, বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের ভাইস চেয়ারম্যান ও সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি এ এম আমিন উদ্দিন এবং সম্পাদক ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল এ শোক প্রকাশ করেন। শোকবার্তায় বলা হয়, বাসেত মজুমদারের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করছি ও তার আত্মার মাগফেরাত কামনা করছি। দোয়া করি, আল্লাহ পাক তার শোকসন্তপ্ত পরিবারকে এ শোক কাটানোর শক্তি দেন।
প্রধান বিচারপতির শোক: প্রবীণ আইনজীবী আবদুল বাসেত মজুমদার গুরুত্বপূর্ণ আইনি বিষয়ে আদালতকে সবসময় সহযোগিতা করেছেন বলে উল্লেখ করলেন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন। আজ বুধবার সকালে এক শোকবার্তায় বাসেত মজুমদারের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করে এ কথা বলেন তিনি। শোকবার্তার বিষয়টি গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের স্পেশাল কর্মকর্তা ব্যারিস্টার মোহাম্মদ সাইফুর রহমান। এতে প্রধান বিচারপতি বলেন, বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের বিজ্ঞ জ্যেষ্ঠ আইনজীবী, বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান, সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি এবং সাবেক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবদুল বাসেত মজুমদারের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করছি। অত্যন্ত সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে তিনি পেশাগত দায়িত্ব পালন করেছেন। আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা এবং মানুষের ন্যায়বিচার নিশ্চিত করতে তার অসামান্য অবদান রয়েছে। সদ্য প্রয়াত এ আইনজীবী সম্পর্কে তিনি বলেন, গুরুত্বপূর্ণ আইনি বিষয়ে তিনি (বাসেত মজুমদার) আদালতকে সবসময় সহযোগিতা করেছেন। তিনি ছিলেন সর্বজন শ্রদ্ধেয়। দরিদ্র মানুষের আইনজীবী হিসেবে তিনি ব্যাপকভাবে পরিচিত ছিলেন। জুনিয়র আইনজীবীদের সার্বক্ষণিক সহযোগিতা করেছেন। জাতি চিরকাল শ্রদ্ধাভরে তাকে স্মরণ রাখবে। ব্যক্তিগতভাবে তার সঙ্গে আমার অনেক স্মৃতি রয়েছে।
নিম্ন আদালতের বিচারিক কার্যক্রম বন্ধ: জ্যেষ্ঠ আইনজীবী আবদুল বাসেত মজুমদারকে শ্রদ্ধা জানিয়ে ঢাকার নিম্ন আদালতের বিচারিক কার্যক্রম বন্ধ ছিল আজ বুধবার। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ঢাকা আইনজীবী সমিতির সভাপতি আবদুল বাতেন। তিনি বলেন, বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান ও সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি আবদুল বাসেত মজুমদারের মৃত্যুতে আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি যে, বিচারিক আদালতে মামলার কার্যক্রমে অংশ নেবো না। এ সিদ্ধান্তের কথা বিচারকদের জানিয়ে দিয়েছি। তবে আইনজীবীদের মাধ্যমে আসামিরা হাজিরা দিতে পারবেন। এ ছাড়া প্রডাকশনের আসামি আসলে তাদের শুনানি হবে।
বসেনি সুপ্রিম কোর্ট: সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি ও বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল বাসেত মজুমদারের মৃত্যুতে তার প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে সুপ্রিম কোর্টের আপিল ও হাইকোর্ট বিভাগ বসেনি। আজ বুধবার সকালে সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন থেকে গণমাধ্যমকে এ তথ্য জানানো হয়েছে। ঢাকা জজ আদালত, সিএম.এম আদালত, সি.জি.এম আদালতসহ কোনো আদালতের কার্যক্রমও আজ অনুষ্ঠিত হয়নি।
তার দ্বিতীয় জানাযা বাদ আসর কুমিল্লা আইনজীবী সমিতিতে এবং সর্বশেষ জানাযা লালমাই উপজেলায় শাঁনিতো গ্রামে বাদ মাগরির সর্বশেষ জানাযা চির নিদ্রায় শায়িত করা হয়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category