• বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ১০:১৫ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ
কৃষি জমির মাটি কাটার ঘটনায় বিচার বিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ দেড় বছরেও চালু হয়নি বিশেষায়িত শিশু হাসপাতালের কার্যক্রম শ্রম আইন নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র টালবাহানা করছে: প্রতিমন্ত্রী কারিগরির সনদ বাণিজ্য: জিজ্ঞাসাবাদে দায় এড়ানোর চেষ্টা সাবেক চেয়ারম্যানের বাংলাদেশ থেকে আরও কর্মী নিতে কাতারের প্রতি আহ্বান রাষ্ট্রপতির ফরিদপুরে ১৫ জনের মৃত্যু: অপেশাদার লাইসেন্সে ১৩ বছর ধরে বাস চালাচ্ছিলেন চালক বেনজীরের দুর্নীতির অভিযোগ অনুসন্ধানের অগ্রগতি প্রতিবেদন চেয়েছেন হাইকোর্ট পাট পণ্যের উন্নয়ন ও বিপণনে সমন্বিত পথনকশা প্রণয়ন করা হবে: পাটমন্ত্রী কক্সবাজারে অপহরণের ২৬ ঘণ্টা পর পল্লী চিকিৎসক মুক্ত বান্দরবানের তিন উপজেলায় ভোট স্থগিত : ইসি সচিব

‘আদালতে অভিযোগ করা যাবে না’ সংক্রান্ত দুদকের বিধি বাতিলের প্রশ্নে রুল

Reporter Name / ৬৬ Time View
Update : রবিবার, ১২ জুন, ২০২২

নিজস্ব প্রতিবেদক :
দুদকের তফসিলভুক্ত অপরাধের বিষয়ে কোনও ব্যক্তি সরাসরি আদালতে অভিযোগ করতে পারবেন না’ মর্মে উল্লিখিত দুদক আইনের বিধিটি কেন বাতিল করা হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট। রুলে বিধিটি কেন সংবিধানের সঙ্গে সাংঘর্ষিক নয় এবং এর অন্তর্ভুক্তি কেন আইনগত কর্তৃত্ব বহির্ভুত হবে না; তাও জানতে চাওয়া হয়েছে। মামলার বিবাদীদের এ রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে। এক সম্পূরক আবেদনের শুনানি নিয়ে আজ রোববার বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি কাজী মো. ইজারুল হক আকন্দের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রুল জারি করেন। আদালতে দুদকের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী মো. খুরশীদ আলম খান। রিটের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন রিটকারী আইনজীবী সুবীর নন্দী দাস। আর রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল একেএম আমিন উদ্দিন মানিক। দুদক নিজেই মামলা করার ক্ষমতা সংক্রান্ত বিষয়ে দুর্নীতি দমন কমিশন বিধিমালা-২০০৭ সংশোধন করে ২০১৯ সালের ২০ জুন গেজেট জারি করে। পরে একই বছরের ১৩ নভেম্বর সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী সুবীর নন্দী দাস এবং ব্যারিস্টার নওশীন নাওয়াল বিধিটির বৈধতা প্রশ্নে রিট দায়ের করেন। ওই রিটের শুনানি নিয়ে ২০১৯ সালের ১৭ ডিসেম্বর থানার পরিবর্তে দুদক কার্যালয়ে এজাহার দায়ের করা কেন অসাংবিধানিক ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেন হাইকোর্ট। পরে রিট আবেদনকারীরা একই বিধিমালার ১৩ (৩) বিধির বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে একটি সম্পুরক আবেদন দেন। ওই বিধিতে বলা হয়, আইনের (দুদক) তফসিলভুক্ত কোনও অপরাধ সংঘটনের বিষয়ে কেউ কোনও অভিযোগ সরাসরি কোনও আদালতে দায়ের করতে পারবে না। তবে শর্ত থাকে যে, যদি কোনও সিনিয়র স্পেশাল জজ আদালত এই মর্মে সন্তুষ্ট হয় যে, আইনের তফসিলভুক্ত কোনও অপরাধ সংঘটিত হয়েছে বলে বিশ্বাস করার মতো যথেষ্ট কারণ রয়েছে এবং ওই অপরাধ সংঘটন বিষয়ে ইতঃপূর্বে অভিযোগকারীর দাখিলকৃত অভিযোগের ভিত্তিতে কমিশন তদন্ত কার্য ক্রমে অগ্রসর না হওয়ার সিদ্ধান্ত যুক্তিযুক্ত ছিল না। সেই ক্ষেত্রে ওই আদালত অভিযোগটি গ্রহণ করে তদন্তের জন্য কমিশনকে নির্দেশসহ অভিযোগটি এবং অভিযোগের সমর্থনে দাখিলকৃত কাগজপত্র যদি থাকে, তা কমিশনে বা ক্ষেত্রমতো কমিশনের সংশ্লিষ্ট জেলা কার্যালয়ে প্রেরণ করবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category