• বৃহস্পতিবার, ১১ এপ্রিল ২০২৪, ০৪:৪৩ অপরাহ্ন
সর্বশেষ
স্বাস্থ্যসেবায় অভূতপূর্ব অর্জন বাংলাদেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করেছে: রাষ্ট্রপতি শান্তি আলোচনায় কেএনএফকে বিশ্বাস করেছিলাম, তারা ষড়যন্ত্র করেছে: সেনাপ্রধান বন কর্মকর্তার খুনিদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিতে কাজ করছে মন্ত্রণালয়: পরিবেশমন্ত্রী পুরান ঢাকার রাসায়নিক গুদাম: ১৪ বছর ধরে সরানোর অপেক্ষা ভাসানটেক বস্তিতে ফায়ার হাইড্রেন্ট স্থাপন করা হবে : মেয়র আতিক রুমা উপজেলা সোনালী ব্যাংকের অপহৃত ম্যানেজার উদ্ধারের পর পরিবার কাছে হস্তান্তর সন্ত্রাসী দল কর্মকান্ড পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বান্দরবানে চলছে জমজমাট নাইট মিনিবার স্বাধীনতা কাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট-২৪ সরকারের বাস্তবমুখী পদক্ষেপে শিশু ও মাতৃমৃত্যুর হার কমেছে: প্রধানমন্ত্রী বান্দরবানে সোনালী ব্যাংকে লুটের ঘটনা খতিয়ে দেখা হচ্ছে

ইটভাটায় অবাধে পুড়ছে কাঠ, হুমকির মুখে পরিবেশ

Reporter Name / ৭৩ Time View
Update : রবিবার, ২৫ ডিসেম্বর, ২০২২

নিজস্ব প্রতিবেদক :
রাজবাড়ীর পাঁচ উপজেলায় আইনের তোয়াক্কা না করে অধিকাংশ ইটভাটায় অবাধে কাঠ পোড়ানো হচ্ছে। প্রশাসন কয়েকটি ভাটায় অভিযান চালিয়ে জরিমানা ও কার্যক্রম বন্ধ করলেও, পরদিন থেকেই পূর্বাবস্থায় ফিরে গেছে ভাটাগুলো। রাজবাড়ী সদর উপজেলার দর্পনারায়ণপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাশেই গড়ে উঠেছে ‘ইএমবি ব্রিকস’ নামের অবৈধ একটি ইটভাটা। এর বিষাক্ত ধোঁয়ায় মারাত্মক স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে ক্লাস করছে কোমলমতি শিক্ষার্থীরা। শিক্ষার্থীরা বলছে, ক্লাসের সময় ইটভাটার কালো ধোঁয়া সরাসরি তাদের নাক দিয়ে শরীরে প্রবেশ করে। চোখে বালু ও ধোঁয়া ঢুকে যায়। ফলে নিঃশ্বাস নিতে কষ্ট হয়। চোখেও সমস্যা হয়। ইটভাটার ট্রাক ও ভেকুসহ বিভিন্ন মেশিনের শব্দে ক্লাসের সময় তারা শিক্ষকদের কথা শুনতে পারে না। বিদ্যালয়ের মাঠে খেলাধুলা করার সময় ভাটার ট্রাকগুলো দ্রুতগতিতে আসে। এতে তারা ভয় পায়। ইটভাটায় জ¦ালানি কাজে কর্মরত কয়েকজন শ্রমিক জানান, সংশ্লিষ্ট ভাটামালিকের নির্দেশে (ভাটাশ্রমিক) শুধু জ¦ালানি কাঠ ব্যবহার করে তারা ইট পোড়াচ্ছেন। ইটভাটায় জ¦ালানির কাজে কয়লার বদলে কাঠের ব্যবহার প্রসঙ্গে ভাগলপুর গ্রামের এস আই বি ব্রিকসের সহকারী পরিচালক ফিরোজ সরদার বলেন, ‘প্রথমে খড়ি দিয়েই ভাটায় আগুন শুরু করতে হয়। পরে কয়লা ব্যবহার হয়। কয়লার দাম কমে যাবে, এই আশা নিয়েই আমাদের ভাটায় আগুন জ¦ালানো হয়। তখন থেকে আমরা ভাটায় শুধু খড়ি দিয়ে ইট পোড়াচ্ছি। বর্তমানে খড়ির দামও আগের চেয়ে বেড়েছে। এখন প্রতি মণ খড়ি ১৮০ টাকা থেকে ১৮৫ টাকায় কিনতে হচ্ছে। কয়লার দামটা কমার সঙ্গে সঙ্গে ভাটায় খড়ি ব্যবহার বন্ধ করে আমরা কয়লা ব্যবহার করবো।’ সদর উপজেলার খানখানাপুরে এসআইবি ও টিআইবি নামের দুটি ইটভাটার মালিক আজিবর সরদার। এই দুটি ভাটার শ্রমিক সরদার মামুন ভূঁইয়া জানা, দুটি ভাটায় ২৫০ জন শ্রমিক কাজ করেন। একেকটি ভাটায় প্রতিদিন ৫০০ থেকে ৫৫০ মণ কাঠ পুড়ছে। সেই হিসাবে আটটি ভাটায় প্রতিদিন অন্তত চার হাজার মণ কাঠ পুড়ছে। ভাটামালিকের নির্দেশে কয়লার পরিবর্তে দুই মাস ধরে কাঠ পোড়ানো হচ্ছে। জেলা সদরের খানখানাপুরে এএসবি ইটভাটার অংশীদার শাহিদ খান বলেন, ‘কয়লা না পাওয়ায় বাধ্য হয়ে কাঠ পোড়াতে হচ্ছে। তাছাড়া কয়লা দিয়ে পোড়ালে ইটের দামও বেড়ে যায়। সেজন্য কাঠ দিয়েই ইট পোড়ানো হচ্ছে।’ কামরুল শেখ নামে এক শ্রমিক বলেন, ‘ভাটায় কাঠ ব্যবহার করলে প্রতিটি ইটে খরচ পড়ে থেকে সাড়ে ৯ টাকা। অন্য দিকে কয়লা ব্যবহার করলে প্রতিটি ইটে খরচ পড়ে সাড়ে ১০ থেকে ১১ টাকা। বর্তমানে প্রতি হাজার ইট সাড়ে ১১ হাজার থেকে ১২ হাজার টাকায় বিক্রি হচ্ছে।’ হায়দার আলী নামের এক কৃষক বলেন, ‘প্রতিদিন শত শত ট্রাক মাটি ইটভাটায় যাচ্ছে। ফসলি জমির ওপরের অংশ কেটে ফেলে মাটি ভাটায় আনা হচ্ছে। এ কারণে আবাদি জমির পরিমাণ কমে যাচ্ছে। ধোঁয়া ও বালুকণার কারণে গাছপালা ও পরিবেশ নষ্ট হচ্ছে ‘ সেকেন্দার নামে স্থানীয় এক বাসিন্দা বলেন, ‘আমাদের ৩০ বছরের বসতভিটা। আগে একটি ভাঁটা ছিল। এখন চারপাশে ছয়টি ইটভাটা। ধুলাবালি আর ধোয়ায় ঘরবাড়ি নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। ঘরের ভেতর ঝুঁকিপূর্ণ পরিবেশে বাস করছি।’ রাজবাড়ী জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক এসএম সহীদ নুর আকবর বলেন, ‘রাজবাড়ী জেলায় অধিকাংশই ইটভাটাগুলো নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করে কৃষিজমিতে স্থাপন করা হয়েছে। তারপরও আবার ভাটায় কাঠ পোড়ানোর কারণে ফসলের ফলন বিপর্যয় ঘটছে। ইটভাটার কারণে কৃষি জমি হ্রাস পাচ্ছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানাই।’ রাজবাড়ীর জেলা প্রশাসক আবু কায়সার খান বলেন, ‘এ বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।’ অবৈধ এসব ইটভাটার বিরুদ্ধে দ্রুত পদক্ষেপ নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন পরিবেশ অধিদপ্তর ফরিদপুর কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মো. সাইফুল ইসলাম। তিনি বলেন, ‘রাজবাড়ীতে ৯৯টি ইটভাটার মধ্যে ৭৩টি ভাটাই অবৈধ। আমরা এরইমধ্যে অবৈধ ইটভাটাগুলোতে অভিযান শুরু করেছি। কয়েকটি ভাটায় জরিমানা করার পাশাপাশি একটি ভাঁটা ভেঙে দিয়েছি। পর্যায়ক্রমে সকল অবৈধ ইটভাটার বিরুদ্ধে অভিযান চালিয়ে তাদের কার্যক্রম বন্ধ করে দেবো।’


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category