• সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১০:১৭ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ
সিন্ডিকেটদের মদদ দিচ্ছে বিএনপি: কাদের পরজীবি দল হিসেবে জাপার প্রয়োজন আছে, গৃহপালিত নয়: জিএম কাদের দেশে কিশোর-তরুণদের প্রাণঘাতী যানে পরিণত হয়েছে মোটরবাইক চট্টগ্রাম নগর ছাত্রলীগের শীর্ষ পদ পেতে আগ্রহী ১৪০০ জন ভারতীয় বন বিভাগের সহায়তায় নিজ দেশে ফিরল দুই হাতি বান্দরবানে সড়ক নির্মাণে বালির পরিবর্তে পাহাড়ের মাটি ব্যবহার স্পেনের বিনিয়োগকারীদের বাংলাদেশের বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চলে বিনিয়োগের আহ্বান রাষ্ট্রপতির অ্যাপভিত্তিক রাইড শেয়ারিংয়ে অনীহা বেশিরভাগ মোটরসাইকেল চালকেরই কোটি টাকার অস্ত্রোপচার বাংলাদেশে করা হয়েছে বিনামূল্যে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী শিশু আয়ানের মৃত্যুর ঘটনা তদন্তে নতুন কমিটি গঠন হাইকোর্টের

করোনার মহামারীতেও বেড়েছে কোটিপতি হিসাবধারীর সংখ্যা

Reporter Name / ১১৭ Time View
Update : শনিবার, ২৫ ডিসেম্বর, ২০২১

নিজস্ব প্রতিবেদক :
করোনা মহামারী প্রাদুর্ভাবের মধ্যেও দেশে কোটিপতি হিসাবধারীর সংখ্যা বেড়েছে। বর্তমানে দেশে কোটিপতি আমানতকারীর সংখ্যা এক লাখ ছাড়িয়ে গেছে। আর এক বছরের ব্যবধানে প্রায় সাড়ে ১২ হাজার কোটিপতি আমানতকারী বেড়েছে। আর চলতি বছরের প্রথম ৯ মাসে বেড়েছে ৬ হাজারেরও বেশি। যদিও করোনার গত দেড় বছরে দেশে প্রায় সাড়ে ১৭ হাজার কোটিপতি বেড়েছে। করোনায় মানুষের আয় কমার পরও কোটিপতির সংখ্যা বাড়ার প্রবণতা সমাজে আয় বৈষম্য বাড়াচ্ছে। বর্তমানে দেশে অর্থনীতির আকার ক্রমেই বড় হচ্ছে। প্রতিবছরই জিডিপি প্রবৃদ্ধি ও মাথাপিছু আয় বাড়ছে। তবে কিছু মানুষ যেমন গরিব হয়েছে, তেমনি ধনীরা আরো বেশি ধনী হয়েছে। মূলত অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির গুণগত মান না বাড়ায় সমাজের একটি শ্রেণির কাছেই বেশি সম্পদ ও অর্থ কেন্দ্রীভূত হয়ে পড়ছে। বাংলাদেশ ব্যাংক সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য জানা যায়।
সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, চলতি বছরের সেপ্টেম্বর শেষে দেশে মোট আমানতকারী সঞ্চয় হিসাব সংখ্যা ১২ কোটি ৩৫ লাখ ৬৩ হাজার ৩৪৬টি দাঁড়িয়েছে। ওসব অ্যাকাউন্টে আমানত জমা আছে ১৪ লাখ ৬২ হাজার ৮৮৮ কোটি টাকা। তার মধ্যে এক কোটি টাকার আমানতকারী অ্যাকাউন্ট সংখ্যা এক লাখ ২৩৯টি। ওসব অ্যাকাউন্টে আমানতের পরিমাণ ৬ লাখ ৩৯ হাজার ২৮৫ কোটি টাকা। যদিও এক বছর আগে গত বছরের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত দেশে এক কোটি টাকার বেশি অ্যাকাউন্ট ছিল ৮৭ হাজার ৪৯০টি। ফলে গত এক বছরের ব্যবধানে কোটিপতি অ্যাকাউন্ট ১২ হাজার ৭৪৯টি বেড়েছে। আর গত বছরের ডিসেম্বরে দেশে কোটিপতি আমানতকারী অ্যাকাউন্ট ৯৩ হাজার ৮৯০টি ছিল। ওই হিসেবে চলতি বছরের প্রথম ৯ মাসে কোটিপতি আমানতকারী বেড়েছে ৬ হাজার ৩৪৯ জন। আর গত বছরের প্রথম ৯ মাসে কোটিপতি আমানতকারী অ্যাকাউন্ট মাত্র তিন হাজার ৬৫১টি বেড়েছিল।
সূত্র জানায়, গত বছরের মার্চে দেশে করোনার প্রাদুর্ভাব শুরুর পর গোটা দেশের অর্থনীতিতে নেতিবাচক প্রভাব পড়ে। ওই সময়ে অনেকে চাকরি ও কাজ হারিয়ে কর্মহীন হয়েছে। আবার অনেকের আয় কমে যায়। নতুন করে দারিদ্র্যের কাতারে যায় এমন মানুষের সংখ্যাও অনেক। কিন্তু একই সময়ে এক শ্রেণির মানুষের আয় না কমে বরং উল্টো বেড়েছে। করোনা প্রাদুর্ভাব শুরুর আগে গত বছরের মার্চ পর্যন্ত দেশে কোটিপতি আমানতকারীর হিসাব সংখ্যা ছিল ৮২ হাজার ৬২৫ জন। চলতি বছরের সেপ্টেম্বরে তা বেড়ে হয়েছে এক লাখ ২৩৯ জন। ফলে করোনায় গত দেড় বছরে দেশে কোটিপতি আমানতকারী বেড়েছে ১৭ হাজার ৬১৪ জন।
সূত্র আরো জানায়, করোনাকালে এক কোটি এক টাকা থেকে ৫ কোটি টাকার অ্যাকাউন্ট সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৭৮ হাজার ৭২৫টি। আর ৫ কোটি এক টাকা থেকে ১০ কোটির মধ্যে অ্যাকাউন্ট রয়েছে ১১ হাজার ৭৯টি। ১০ কোটি এক টাকা থেকে ১৫ কোটির মধ্যে অ্যাকাউন্ট রয়েছে ৩ হাজার ৬৪২টি। ১৫ কোটি এক টাকা থেকে ২০ কোটির মধ্যে অ্যাকাউন্ট এক হাজার ৭৪০টি। ২০ কোটি এক টাকা থেকে ২৫ কোটির মধ্যে অ্যাকাউন্ট এক হাজার ১৮৩টি। ২৫ কোটি এক টাকা থেকে ৩০ কোটির মধ্যে অ্যাকাউন্ট ৯১৬টি। ৩০ কোটি এক টাকা থেকে ৩৫ কোটি টাকার মধ্যে অ্যাকাউন্ট ৪৩০টি। ৩৫ কোটি এক টাকা থেকে ৪০ কোটির মধ্যে অ্যাকাউন্ট ৩২৬টি। ৪০ কোটি এক টাকা থেকে ৫০ কোটি টাকার অ্যাকাউন্ট ৬২৯টি। আর ৫০ কোটি টাকার বেশি আমানত গচ্ছিত রাখা অ্যাকাউন্ট এক হাজার ৫৫৯টি। অথচ স্বাধীনতার পর ১৯৭২ সালে দেশে কোটিপতি আমানতকারী ছিলেন ৫ জন আর ১৯৭৫ সালে তা ৪৭ জনে উন্নীত হয়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category