• সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ০২:৫৬ পূর্বাহ্ন
  • ই-পেপার
সর্বশেষ
ঈদযাত্রায় বাড়তি ভাড়া আদায় করলে ব্যবস্থা বেনজীরের অঢেল সম্পদে হতবাক হাইকোর্ট তারেকসহ পলাতক আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে: প্রধানমন্ত্রী দুয়েক সময় আমাদের ট্রলার-টহল বোটে মিয়ানমারের গুলি লেগেছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ব্যবসায়িদের প্রতি নিয়ম-নীতি মেনে কার্যক্রম পরিচালনার আহ্বান রাষ্ট্রপতির সহকর্মীকে হত্যাকারী কনস্টেবল মানসিক ভারসাম্যহীন দাবি পরিবারের বিনামূল্যে সরকারি বাড়ি গৃহহীনদের আত্মমর্যাদা এনে দিয়েছে: প্রধানমন্ত্রী চেকিংয়ের জন্য গাড়ি থামানো চাঁদাবাজির অংশ নয়: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সারা দেশে ভোটার তালিকায় রোহিঙ্গা কতজন জানতে চেয়েছেন হাইকোর্ট বান্দরবান থেকে কেএনএফের ৩১ জনকে পাঠানো হলো চট্টগ্রাম কারাগারে

জাল টিআইএনে গাড়ির রেজিস্ট্রেশন নেয়া বন্ধে সরকারি দুই সংস্থার সম্মিলিত উদ্যোগ

Reporter Name / ১৬৫ Time View
Update : শনিবার, ২ অক্টোবর, ২০২১

নিজস্ব প্রতিবেদক :
জাল টিআইএনে গাড়ির রেজিস্ট্রেশন নেয়া বন্ধের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। ওই লক্ষ্যে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) এবং বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি (বিআরটিএ) সমঝোতা চুক্তি করেছে। ফলে কর ফাঁকি দিতে যারা জাল টিআইএনে গাড়ি রেজিস্ট্রেশন করেছে তারা ভবিষ্যতে গাড়ি রেজিস্ট্রেশন নবায়ন করতে পারবে না। বরং বিআরটিএর শাস্তির মুখোমুখি হতে হবে। পাশাপাশি আয়কর রিটার্নে তথ্য গোপন করা হলে নির্ধারিত করের সঙ্গে জরিমানাও গুনতে হবে। চুক্তির আওতায় দুই সংস্থাই নিজেদের সার্ভারের রিয়েল টাইম তথ্য আদান-প্রদান করবে। বিআরটিএ এনবিআরের ই-টিআইএন (করদাতা শনাক্তকরণ নম্বর) ও অ্যাসাইকুডা ওয়ার্ল্ড সার্ভারে প্রবেশ করতে পারবে। আর এনবিআরও বিআরটিএর সার্ভারে গাড়ির রেজিস্ট্রেশন সম্পর্কিত যাবতীয় তথ্য যাচাই করতে পারবে। এনবিআর সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য জানা যায়। সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, এনবিআর এবং বিআরটিএর সমন্বয়ের অভাবে দেশে দীর্ঘদিন ধরেই ব্যক্তিগত গাড়ি রেজিস্ট্রেশনে নৈরাজ্য চলছিল। ক্ষেত্রবিশেষে শুল্ক ফাঁকি দিতে কাস্টমসে মাইক্রোবাসকে অ্যাম্বুলেন্স ঘোষণা দেয়া হয়েছে কিন্তু ওই অ্যাম্বুলেন্সকে বিআরটিএ থেকে মাইক্রোবাস হিসাবে রেজিস্ট্রেশন নেয়া হয়েছে। কাস্টমস বা বিআরটিএর সমন্বয়হীনতার কারণে এমন ধরনের জালিয়াতি প্রতিহত করা যাচ্ছিল না। ফলে জাল টিআইএনে বিপুলসংখ্যক গাড়ির রেজিস্ট্রেশন নেয়ার ঘটনা ঘটেছে। আবার একাধিক গাড়ি থাকলেও এনবিআর নির্ধারিত হারে ফি আদায় করা হতো না। এখন সরকারি দুই সংস্থার মধ্যে চুক্তির ফলে সব ধরনের জালিয়াতি সম্পূর্ণরূপে বন্ধ হবে। ফলে সরকারের রাজস্ব আদায় বহুলাংশে বাড়বে। সূত্র জানায়, বিআরটিএ এখন থেকে ব্যক্তিগত গাড়ি নিবন্ধনের সময় এনবিআরের ই-টিআইএন সার্ভারে ঢুকে গ্রাহকের টিআইএন সঠিক নাকি ভুয়া তা যাচাই করবে। তারপর কাস্টমসের অ্যাসাইকুডা ওয়ার্ল্ড সিস্টেমে প্রবেশ করে গাড়ির বিল অফ এন্ট্রি (বি/ই) যাচাই করবে। বিল অফ এন্ট্রি যাচাই করলে গাড়ির বিস্তারিত তথ্য পাওয়া যাবে। তখন অ্যাম্বুলেন্স ঘোষণা আনা গাড়ি মাইক্রোবাস হিসাবে রেজিস্ট্রেশন সম্ভব হবে না। একইভাবে আয়কর অফিস করদাতার জমা দেয়া রিটার্ন যাচাই করবে। বিআরটিএর সার্ভারে এনআইডি, টিআইএন বা গাড়ির নম্বর দিয়ে সার্চ দিলেই গাড়ির বিস্তারিত তথ্য পাওয়া যাবে। ফলে চাইলেও গাড়ির তথ্য আয়কর অফিসের কাছে লুকানো যাবে না।
সূত্র আরো জানায়, কেন্দ্রীয় কর জরিপ অঞ্চল নিয়মিত কার্যক্রমের অংশ হিসাবে গত বছরের শুরুতে বিআরটিএ থেকে এক হাজার ৮২১টি বিলাসবহুল গাড়ির তথ্য সংগ্রহ করে। ওই গাড়িগুলোর মধ্যে রয়েছে বিএমডব্লিউ, ভলভো, মার্সিডিজ বেঞ্জ, আউডি, লেক্সাস, জাগুয়ার, হ্যামার, প্রাডো ও হ্যারিয়ার। ৮২১টি গাড়ির মধ্যে ১২৬টির রেজিস্ট্রেশনে জাল টিআইএন ব্যবহার করা করা হয়েছে। তাতে উভয় সংস্থার কর্তাব্যক্তিদের টনক নড়ে। এরপর বিআরটিএর সঙ্গে দফায় দফায় বৈঠক করে জাল টিআইএনর তৎপরতা বন্ধে কাজ শুরু করে এনবিআর। আয়কর অধ্যাদেশে জাল টিআইএন ব্যবহারের জন্য সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিকে সর্বোচ্চ ২০ হাজার টাকা জরিমানাসহ কারাদ-ের বিধান আছে। আর সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান টিআইএন ভেরিফিকেশন না করলেও ওই প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা আরোপের বিধান রয়েছে। আয়কর বিভাগ সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানকে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা পর্যন্ত জরিমানা করতে পারে।
এ বিষয়ে এনবিআরের গবেষণা ও পরিসংখ্যান বিভাগের মহাপরিচালক স্থপতি আনোয়ার হোসাইন জানান, ব্যক্তিগত গাড়ি মালিকদের কাছ থেকে কর আদায়ে অনেক আগে থেকে বিআরটিএ ও এনবিআর কাজ করছে। তাকে আইনি কাঠামোয় আনতে এমওইউ করা হয়েছে। ইতোমধ্যে এমওইউর বিষয়ে আয়কর ও কাস্টমসকে জানানো হয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category