• সোমবার, ২৯ মে ২০২৩, ০৯:১৬ পূর্বাহ্ন

তিনটি বিসিএসের ৮৪ জনকে নিয়োগ দিতে নির্দেশ

Reporter Name / ৯৪ Time View
Update : বুধবার, ৫ জানুয়ারি, ২০২২

নিজস্ব প্রতিবেদক :
৩৬, ৩৭ ও ৩৯তম বিসিএসের সুপারিশপ্রাপ্ত ৮৪ জনকে বিভিন্ন ক্যাডারে নিয়োগ দিতে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সচিবকে এই নির্দেশ বাস্তবায়ন করতে বলেছেন আদালত। আদেশের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ সিদ্দিক উল্ল্যাহ মিয়া। এ সংক্রান্ত পৃথক চারটি রিটের বিষয়ে চূড়ান্ত শুনানি নিয়ে বুধবার হাইকোর্টের বিচারপতি মামুনুর রহমান ও বিচারপতি খোন্দকার দিলীরুজ্জামানের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ আদেশ দেন। আদালতে এ বিষয়ে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ সিদ্দিক উল্ল্যাহ মিয়া ও অ্যাডভোকেট মিজানুর রহমান। অন্যদিকে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল অমিত দাশ গুপ্ত। আইনজীবি মোহাম্মদ ছিদ্দিক উল্লাহ্ মিয়া বলেন, এ রায়ের ফলে রিটকারীরা ন্যায় বিচার পেয়েছেন। এতে তাদের নিয়োগের পথ সুগম হলো। এখানে উল্লেখ্য, ৩৯তম বিসিএসের ৩৬ জনের সবাই ডাক্তার। রিটকারীরা হলেন- ৩৭তম বিসিএসের মোসা. আরফুনা খাতুন, কংকন চন্দ্র রায়, শেখ মাহবুবে সোবহানী, আতিয়া তামান্না, জান্নাতুল নাঈম, নাইমুর রহমান, ইমরান হাসান, মেহরাব হোসেন, বেনজীর ইকবাল, মো. রুবাইয়াত ফেরদৌস সহ ৩৮ জন। ৩৯তম বিসিএসের এ.বি.এম মেহেদী, নাহিদ আজম পরাগ, শায়লা আক্তার, মোহাম্মাদ আলী আফতাব, মো. ইব্রাহিম হোসেন, হোসনে আরা সনিয়া, মো. রাকিবুল হাসান, মো. আতিকুর রহমান, আনোয়ার আহমেদ মিয়াজি, রুবাইয়া তাসমিনসহ ৩৬ জন। বাকি ১০ জন ৩৬তম বিসিএসের চাকরিপ্রত্যাশী। আইনজীবী ছিদ্দিক উল্লাহ্ মিয়া বলেন, বাংলাদেশ পাবলিক সার্ভিস কমিশন (বিপিএসসি) ২০১৬ সালের ২৯ ফেব্রুয়ারি, ৩৭তম বিসিএস এবং ২০১৮ সালের ৮ এপ্রিল ৩৯তম বিসিএসের নিয়োগের জন্য বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করলে রিটকারীরা আবেদন করেন। যথারীতি লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হলে ৩৭তম বিসিএসে বিভিন্ন ক্যাডারে ২০১৮ সালের ১২ জুন মোট এক হাজার ৩১৪ জনকে নিয়োগের সুপারিশ করে। পরবর্তী সময়ে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় ২০১৯ সালের ২০ মার্চ এবং পরে বিভিন্ন তারিখে সর্বমোট এক হাজার ২৪৮ জনকে নিয়োগ দেয়। তিনি বলেন, কিন্তু সুপারিশকৃত এক হাজার ৩১৪ জনের মধ্যে ৩৮ জন রিটকারীসহ সর্বমোট ৬৬ জন নিয়োগ বঞ্চিত হন। ৩৯তম বিসিএসে ২০১৯ সালের ৩০ এপ্রিল মোট চার হাজার ৭৯২ জনকে বিসিএস স্বাস্থ্য ক্যাডারে সহকারী সার্জন পদে নিয়োগের সুপারিশ করে। পরবর্তী সময়ে সুপারিশকৃতদের মধ্যে থেকে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় ২০১৯ সালের ১৮ নভেম্বর এবং পরবর্তী বিভিন্ন তারিখে চার হাজার ৭২০ জনকে সহকারী সার্জন পদে নিয়োগ দেয়। ছিদ্দিক উল্লাহ্ মিয়া আরও জানান, ৩৯তম বিসিএসে ৩৬ জন রিটকারীসহ সর্বমোট ৭২ জন নিয়োগ বঞ্চিত হন। বারবার জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে যোগাযোগ করেও নিয়োগ প্রদান না করায় তারা হাইকোর্টে রিট দায়ের করেন। ওই রিটের রুল শুনানি শেষে বিসিএসে সুপারিশপ্রাপ্তদের মধ্যে ৩৬তম থেকে ১০, ৩৭তম থেকে ৩৮ ও ৩৯তম থেকে ৩৬ জনসহ সর্বমোট ৮৪ জনকে বিভিন্ন ক্যাডারে নিয়োগের নির্দেশনা দিয়ে রায় ঘোষণা করলেন হাইকোর্ট।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category