• মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪, ০২:২৭ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ
অগ্নিকা- প্রতিরোধে পদক্ষেপ পর্যালোচনায় বিশেষজ্ঞ কমিটি গঠন হাইকোর্টের রমজানে পণ্যের দাম ঊর্ধ্বমুখী হওয়ার সুযোগ নেই: বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী ১০ মার্চের মধ্যে ১৫ টাকা কেজি দরে চাল পাবে ৫০ লাখ পরিবার: খাদ্যমন্ত্রী বীজে অনিয়মের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে ডিসিদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে: কৃষিমন্ত্রী ধানম-ির টুইন পিক টাওয়ারের ১২ রেস্তোরাঁ সিলগালা বান্দরবানে সাংবাদিকদের ২ দিন ব্যাপী আলোকচিত্র ও ভিডিওগ্রাফি প্রশিক্ষণ মজুদদারির বিরুদ্ধে ডিসিদের কঠোর হওয়ার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর ক্লিনিক-ডায়াগনস্টিকে অভিযানে ডিসিদের সহায়তা চাইলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী সংসদে অনির্বাচিত কেউ আসতে পারে না : স্পিকার ইসলামি শিক্ষা কেন্দ্রে মাওলানা আব্দুলাহ আনোয়ার আটক

রাশিয়া-ইউক্রেন ইস্যুতে আমরা কোনো পক্ষভুক্ত হতে চাই না: তথ্যমন্ত্রী

Reporter Name / ২৪৫ Time View
Update : রবিবার, ৬ মার্চ, ২০২২

নিজস্ব প্রতিবেদক :
আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন ‘ইউক্রেন-রাশিয়ার যুদ্ধ ইস্যুতে বাংলাদেশ কোনো বিবাদে জড়াতে চায় না। সবচেয়ে বড় কথা আমরা কোনো পক্ষভুক্ত হতে চাই না। এটিই আমাদের অবস্থান।’ আজ রোববার সচিবালয়ে তথ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে সমসাময়িক বিষয় নিয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের বক্তব্যের প্রসঙ্গ টেনে এ কথা বলেন মন্ত্রী। এর আগে গত শুক্রবার গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘ইউক্রেনের ওপর রাশিয়ার চলমান সামরিক অভিযানের পরিপ্রেক্ষিতে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের নিন্দা প্রস্তাবে বাংলাদেশের ভোট না দেওয়া সংবিধান ঘোষিত গণতন্ত্র ও মানবিক মূল্যবোধের নীতিমালা পরিপন্থি।’ সাংবাদিকদের পক্ষ থেকে বিএনপি মহাসচিবের বক্তব্যের বিষয়টি তথ্যমন্ত্রীর কাছে তুলে ধরা হলে তিনি বলেন, ‘মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সাহেবরা চান বাংলাদেশ বিবাদে জড়াক। সেজন্যই এ ধরনের কথা বলছেন। বাংলাদেশ কোনো বিবাদে জড়াতে চায় না।’ জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদে বৃহস্পতিবার (৩ মার্চ) হামলা বন্ধ করে ইউক্রেন থেকে রুশ সেনাদের সরিয়ে নিতে প্রস্তাব পাস হয়েছে। ওই প্রস্তাবের পক্ষে ভোট দিয়েছে সাধারণ পরিষদের ১৯৩টি সদস্য দেশের মধ্যে ১৪১টি। তবে চীন, ভারত, পাকিস্তান ও বাংলাদেশসহ ৩৫টি দেশ ভোট দেয়নি। তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ বলেন, ‘আমরা চাই বিশ্বে শান্তি বিরাজ করুক। বাংলাদেশ যে কোনো অশান্তির বিপক্ষে। আমাদের পররাষ্ট্রনীতি হচ্ছে সবার সঙ্গে বন্ধুত্ব, কারও সঙ্গে বৈরিতা নয়। এ কারণেই জাতিসংঘে বাংলাদেশ ভোটদানে বিরত ছিল, ভারতও বিরত ছিল, পাকিস্তানও বিরত ছিল। আরও অনেক দেশ বিরত ছিল। ‘মির্জা ফখরুল ইসলাম সাহেব বাংলাদেশ কেন বিরত ছিল সেটি নিয়ে অনেক কথা বলেছেন। তিনি কিন্তু সব কিছুর ব্যাখ্যা দেন, ভারত পাকিস্তান কেন বিরত ছিল এ ব্যাখ্যাটাও যদি তিনি দেন খুব ভালো হয়। সবচেয়ে বড় কথা আমরা কোনো পক্ষভুক্ত হতে চাই না। এটিই আমাদের অবস্থান।’


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category